• Wednesday, October 16, 2019

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে যুবলীগ কর্মীর কব্জি কর্তনের ঘটনায় আটক ২

  • Sep 19, 2019

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে যুবলীগের কর্মীর হাতের কব্জি কর্তনের ঘটনায় দু্ইজনকে আটক করেছে  শিবগঞ্জ থানা পুলিশ। আহত যুবলীগ কর্মী রুবেল হোসেন উজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বাহিনীকে এ ঘটনার জন্য দায়ী করলেও চেয়ারম্যান এ ঘটনা অস্বীকার করছেন।

বুধবার শেষ রাতে শিবগঞ্জ উপজেলার উজিরপুরের জল বাজার এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটে।

আহত যুবক নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়নের লাভাঙ্গা গ্রামের খোদাবক্সের ছেলে রুবেল হোসেন।

নয়ালাভাঙ্গা এলাকার আওয়ামীলীগ নেতা সালাম জানান, বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রুবেল ও তার ২ বন্ধু রবিউল এবং হাবু উজিরপুরের জলবাজার এলাকায় গেলে রাত ৮ টার দিকে তাদেরকে আটক করে উজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিন ও তার দল। পরে তাদের একটি ঘরে বন্দী করে রাত ২ টার দিকে রুবেলের ২ হাতের কব্জি কেটে ৩ জনকে ছেড়ে দেয়।

এ সময় রুবেলের বন্ধুরা তাকে খবর দিলে আহত রুবেল কে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বর্তমানে রুবেল আশংকাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩১ নং ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে।তিনি আরও দাবী করেন, সম্প্রতি পাঁকা ইউনিয়নের একটি ঘাটের টেন্ডার জমা দেয়াকে কেন্দ্র করে দ্বন্দের জেরে তার কর্মী রুবেল কে চেয়ারম্যান সহ ৮-১০ জনের একটি বাহিনী কুপিয়েছে।

অন্যদিকে উজিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিন এ ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, তিনি কিছুক্ষন আগে একজনকে কোপানোর কথা শুনেছেন। আর ঘটনাস্থল তার ইউনিয়নের বাহিরে ৬ নং বেড়িঁবাধ এলাকায়।

তার দাবী তার প্রতিপক্ষরা তাকে ফাঁসানোর জন্য তার উপর দায় চাপাচ্ছে।

দু’হাত হারানো রুবেলের দাবি, শিবগঞ্জের উজিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা ফয়েজ উদ্দিনের সাথে নদীর ঘাট নিয়ে দীর্ঘদিন দ্বন্দ চলছিলো। তারাই তাকে চোখ বেঁধে তুলে নিয়ে গিয়ে হাত কেটে দিয়েছে। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুলিশ সুপার টি এম মুজাহিদুল ইসলাম জানান, বিভিন্ন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল ও উজিরপুর এলাকায় চিরুনি অভিযান চালায়। এ ঘটনায় থানায় কেউ কোনো অভিযোগ দায়ের করেনি।  জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ২ জন কে আটক করা হয়েছে।