• Friday, July 19, 2019

মহান বিজয় দিবস ও তরুণ সমাজের চাওয়া

  • Dec 16, 2018

˝মহান বিজয় দিবস ও তরুণ সমাজের চাওয়া”

( উৎসর্গ: বিজয় আনন্দের বিপরীতে আছে সীমাহীন ত্যাগ-তিতিক্ষা, স্বজন হারানোর বিষাদ। বিজয় দিবসের প্রাক্কালে সকল শহীদ, যুদ্ধাহতের স্মরণে )

ডা. মো. সাইফ জামান আনন্দ: ‘সাবাস বাংলাদেশ; এ পৃথিবী অবাক তাকিয়ে রয়; জ্বলে পুড়ে মরে ছাড়খার; তবু মাথা নোয়াবার নয়…’ সীমাহীন শোষণ, নিপীড়ন আর অত্যাচার-অবিচারের যাঁতাকলে পিষ্ঠ বাঙালি জাতিকে মুক্তি এনে দেয়া জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাক, ৭ মার্চের বিশ্বব্যাপী আলোড়ন ফেলে দেয়া ভাষণ, জাগ্রত বাঙালির মহাজাগরণ, তারপর ৯ মাসের ত্যাগের ইতিহাস শেষে সত্যিই এক বিস্ময়, এক অবাক করা অহংকারের জন্ম নিলো। ১৬ ডিসেম্বর পৃথিবীর মানচিত্রে বাঙালির অভূতপূর্ব বীরত্বের অভ্যুদয় ঘটলো।

জাতি আজ শ্রদ্ধাবনত চিত্তে স্মরণ করছে, স্বাধীনতা-সংগ্রামের মহান পুরুষ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ‘পদ্মা-মেঘনা-যমুনা, তোমার আমার ঠিকানা’ বাঙালির স্বাধীন স্বদেশের এ দিশা দিয়ে তিনি ঘুমজাগানিয়া গান শুনিয়ে স্বাধীনতার মন্ত্রে উজ্জীবিত করেছিলেন সমগ্র জাতিকে। সুদীর্ঘ দুই যুগের নিরবিচ্ছিন্ন স্বাধিকার আন্দোলনের মাহেন্দ্রক্ষণে শুনিয়েছিলেন মুক্তির গান ‘এবারের সংগ্রাম মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে সকল শ্রেণী, পেশার মানুষের সমান অংশগ্রহণের ভিত্তিতে একটি স্বাধীন সোনার বাংলার স্বপ্নে বুকের তাজা রক্ত বিলিয়ে দিয়েছিলো লক্ষ লক্ষ জনতা।

এই বিজয়ের মায়ায় পরম মমতাময়ী মা তাঁর সন্তানকে যুদ্ধক্ষেত্রে পাঠিয়ে দিতে কুন্ঠাবোধ করেননি। এতো সাধের, এতো ত্যাগের অর্জিত স্বাধীনতাকে বর্তমান প্রজন্ম চায় সুসংহত করতে। স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও উন্নয়নের ধারাকে সুপ্রতিষ্ঠিত করে সূচনালগ্নের ন্যায় বিস্ময়কর পথচলায় প্রিয় দেশকে এগিয়ে নিতে চায় তরুণ সমাজ। সৃজনশীলতার সকল পথ উন্মুক্ত করে বিশ্বের বুকে রোল মডেলে পরিণত হবে বাংলাদেশ এটিই সময়ের চাওয়া। সে পথ পরিক্রমায় বাংলাদেশ বিজয়ের মাসে দাঁড়িয়ে আছে এক ঐতিহাসিক পথ পরিক্রমায়।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে উন্নয়নের সকল যাত্রাকে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে প্রয়োজন স্বাধীনতাকামী, গণতন্ত্রমুখী, উন্নয়নমূলক সরকার। আর জনগণের সকল চাহিদার সাথে সর্বদায় সর্বাপেক্ষা জনসম্পৃক্ত দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। দেশের জন্ম হয়েছে যে দলের নেতৃত্বে, স্বভাবতই দেশের প্রতি মায়াটাও সে দলকেই মানায়। তাই বিজয় দিবসের অঙ্গীকার হোক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে পুনরায় বিপুল ব্যাবধানে জয়ী করে সরকার গঠনের সুযোগ দিয়ে মহান স্বাধীনতার সকল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য পূরণের পথে সামিল হওয়া।

লেখক: ডা. মো. সাইফ জামান আনন্দ (এম.বি.বি.এস, এম.ফিল গবেষক) সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখা।