• Wednesday, June 19, 2019

১ ফেব্রুয়ারি অমর একুশে গ্রন্থমেলা উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

  • Jan 31, 2019

আগামীকাল প্রভাতের আলোর সাথে শুরু হবে ভাষার মাস ও বাংলাসাহিত্যের প্রাণের মাস ফেব্রুয়ারি। ফেব্রুয়ারি জুড়ে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে শুরু হচ্ছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৯। মেলাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে সেজে উঠেছে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ও সোহরাওয়ার্দি উদ্যান। নিজেদের স্টলে শেষ সময়ের প্রলেপ দিতে ব্যস্ত প্রকাশনীগুলো।

বইমেলাকে বলাহয় বাঙালির প্রাণের মেলা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাসহ পুরো বইমেলায় সকল স্তরের মানুষের আগমনে হয়ে ওঠে সরগরম। বলতে গেলে আমাদের লেখকেরা বইমেলাকে উপলক্ষ করেই বই বের করে থাকেন। বইমেলা হয় ওঠে লেখকের সাথে পাঠকের মেলবন্ধনের স্থান। যারা বিখ্যাত-যারা অত্যন্ত সুপরিচিত লেখক তারা হয়ে ওঠেন বইমেলার কেন্দ্রবিন্দু।

নতুন বইয়ের মৌ মৌ গন্ধ ছড়িয়ে থাকে মেলার প্রতিটি ধূলিকণায়। সাথে থাকে নানান চত্বর-বই উদ্বোধন মঞ্চ- আলোচনাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান। চলতে থাকে লেখক-পাঠদের চা-এর সাথে গভীর রাতের আড্ডা। এছাড়াও প্রতিদিন নতুন বইয়ে মোড়ক উন্মোচন হবে। প্রতিবারের মতো এবারও থাকবে শিশুদের জন্য মেলার ভিতরে আলাদা স্থান। যেখানে শুধুমাত্র শিশুদের বই পাওয়া যাবে।

এবারের বইমেলা আয়োজনে থাকবে নতুনত্ব। সম্পূর্ণ বইমেলা জুড়ে থাকবে গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেম (জিপিএস)। অমর একুশে বইমেলায় এবার স্টল থাকছে ৫৫০টি এবং ২৪টি প্যাভিলিয়ন, একাডেমির ভেতরে একটিসহ মোট ২৫টি। একাডেমি প্রাঙ্গণে থাকবে ৮৩টি প্রতিষ্ঠানের ১১১টি স্টল এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে থাকবে ৩২০টি প্রতিষ্ঠানের ৪৬৭টি স্টল।

পাঁচটি চত্বর থাকছে পাঁচ ভাষা শহিদদের নামে। এর একটি হবে বাংলা একাডেমিতে। এছাড়া এবার লেখকদের জন্য সোহরয়ার্দী উদ্যানে থাকবে ‘লেখক বলছি’ নামে একটি মঞ্চ।

বাংলা একাডেমি তথ্য অনুযায়ী, গতবারের মত এবারও মেলা দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে বিকাল ৩টা থেকে চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। রাত সাড়ে ৮টার পর আর কেউ মেলায় প্রবেশ করতে পারবে না।

১ ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার বিকেল ৩টায় বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৯ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বাবু, ভারতীয় কবি শঙ্খ ঘোষ, মিশরীয় লেখক-গবেষক মোহসেন আল আরিশি। স্বাগত বক্তব্য রাখবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবিবুল্লাহ সিরাজী।