• Tuesday, July 14, 2020

আমন ধানের চারা রোপণে ব্যস্ত কৃষক

  • Jul 29, 2018

সাজেদুল হক সাজু:

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বর্ষা মৌসুমের প্রথম দিকে কাঙ্খিত বৃষ্টি না হওয়ায় রোপা-আমন আবাদ নিয়ে চিন্তিত ছিল কৃষকরা। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, বৃষ্টিপাত হওয়ার সময় থাকা এবং কৃষকরা সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত আমনের আবাদ করতে পারবে। ইতোমধ্যে ৬০ ভাগ জমিতে আমন ধানের চারা রোপনের কাজ শেষ করেছে কৃষকরা। সার, বীজ ও ডিজেলের সঙ্কট না থাকায় কৃষকরা আমনের ভাল ফলনের আশা করছে।
জানা গেছে, জেলার ৫টি উপজেলায় চলতি মৌসুমে ৪৮ হাজার ৯’শ ৩৪ হেক্টর জমিতে আমন ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ২৯ হাজার ৩’শ ৫৯ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদ হয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যভাগ পর্যন্ত আমন আবাদ করতে পারবে কৃষকরা। এবছর জেলায় আমন ধানের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লাখ ৩১ হাজার ২’শ ৫১ মেট্রিক টন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় ৯ হাজার ১’শ ২০ হেক্টরের বিপরীতে ৫ হাজার ৪’শ ৭২ হেক্টর, নাচোলে ২২ হাজার ৬’শ ৪৬ হেক্টরের বিপরীতে ১৩ হাজার ৫’শ ৮৭ হেক্টর, গোমস্তাপুরে ১৩ হাজার ৭৫ হেক্টরের বিপরীতে ৭হাজার ৮’শ ৪৫ হেক্টর, ভোলাহাটে ৩ হাজার ৫’শ হেক্টরের বিপরীতে ২ হাজার ১’শ হেক্টর, শিবগঞ্জে ৫’শ ৯৩ হেক্টরের বিপরীতে ৩’শ ৫৫ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ড. মো. শামস-ই-তাবরিজ জানান, এ বছর রোপা আমন মৌসুমের শুরুতে তেমন বৃষ্টিপাত না হওয়ায়, কৃষকরা কিছুটা দুঃশ্চিন্তায় ছিল। সে্েপ্টম্বর মাসের মধ্যভাগ পর্যন্ত এ চাষাবাদ চলবে। তবে, বৃষ্টি দেরীতে হলেও ভাল ফলনের আশা করছেন তিনি।
গত বছর এ সময় ৩’শ ৪৯ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত হয়েছিল। কিন্তু, চলতি মৌসুমে এ পর্যন্ত ১’শ ৭৯ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। বৃষ্টি কম হলেও বিকল্প হিসেবে সেচের মাধ্যমে কৃষকরা চাষাবাদ পুষিয়ে নিবে ।

নাচোল উপজেলার নেজামপুরের কৃষক দুলাল হোসেন বলেন, বৃষ্টি কম হলেও গভীর নলকূপের পানি থেকে অর্ধেক জমি চাষাবাদ করা হয়েছে। তবে, ইতোমধ্যে বৃষ্টি হওয়ায় বাকি জমি চাষাবাদে তেমন আর বাধা থাকলো না।