• Sunday, June 16, 2024

চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিন্মচাপের প্রভাবে থমকে গেছে স্বাভাবিক কার্যক্রম : আরও দু এক দিন বৃষ্টি হতে পারে

  • Oct 12, 2018

Spread the love

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঘূর্ণিঝড় তিতলির প্রভাবে নিম্ন চাপের কারণে থমকে গেছে স্বাভাবিক কার্যক্রম। গত বুধবার ভোর রাত থেকে আকাশ মেঘলা সাথে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি থেমে থেমে অনবরত হয়ে যাচ্ছে। সাথে হিম শীতল ঠান্ডা বাতাস আর বৃষ্টি জানান দিচ্ছে শীতও আসছে।

সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ কাজের প্রয়োজনে মানুষকে বাইরে বের হলেই পড়তে হচ্ছে যানবাহনের সমস্যায়। বৃষ্টির কারণে রিকশা, অটোরিকশা যে তুলনায় চলাচল করে তার অর্ধেকে নেমে এসছে। লাগামহীন বৃষ্টিতে জেলার প্রতিটি সড়কেই পানি জমে যাচ্ছে। পানি জমে যাবার কারণে রাস্তার কিছু কিছু অংশে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে যা ভয়ানক। শুক্রবার দিনব্যাপী শহরের বিভিন্নস্থান ঘুরে এমনটাই চিত্র দেখা গেছে।

বিশ্বরোড মোড়সহ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর বীরশ্রেষ্ঠ মহানন্দা সেতুতে উঠতে এবং সেতু থেকে নামতে বারঘরিয়া অংশে প্রায় ১৫ এর অধীক স্থানে রাস্তার পিচ কার্পেটিং উঠে গিয়ে গর্ত হয়েছে। সে গর্তে বৃষ্টির পানি জমে আস্তে আস্তে বড় হচ্ছে। অটোরিকশা, সিএনজি, মাহিন্দ্র ও মোটরসাইকেল এ সব গর্তে চাকা পড়লে মারাত্মক দুর্ঘটনা মুহুর্তে ঘটে যেতে পারে। এ ছাড়াও বেশ কিছু রাস্তার পাশে বৃষ্টি পানি নামার সাথে সাথে মাটি ক্ষয় হয়ে হুমকির মুখে পড়েছে মূল রাস্তা। দ্রুত সড়ক বিভাগ এ সব স্থান মেরামত না করলে বড় ধরনের রাস্তার বিপর্যয় ঘটে যেতে পারে।

খেয়ে খাওয়া দিনমজুর মানুষদের দুর্ভোগ অনেক। বৃষ্টি আর আবহাওয়া থাকার কারণে কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। অনেক ফেরিওয়ালা বের হতে পারিনি। বৃষ্টি হবার কারণে স্কুল কলেজে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিও কমে গেছে। শহর ও গ্রামের বেশিরভাগ দোকানপাট মালামাল না থাকার জন্য বন্ধ রাখতে বাধ্য হচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড় তিতলি হারিকেনের শক্তি নিয়ে গত বৃহস্পতিবার ভোরে ভারতের ওড়িশা-অন্ধ প্রদেশ উপকুল অতিক্রম করে। এরপর বৃষ্টি ঝরিয়ে দুর্বর হতে শুরু করায় দেশের সমুদ্রবন্দর গুলোকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সঙ্কেত নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সঙ্কেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। তবে ঝড়টি আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে কিছুটা বাঁক নিয়ে গাঙ্গেয় পশ্চিম বঙ্গের দিকে অগ্রসর হওয়ায়র সম্ভাবনা থাকায় এর প্রভাবে বাংলাদেশেও গুড়িগুড়ি ও ভারি বৃষ্টি হচ্ছে। সরকার দেশের ১৯ জেলার জেলা প্রশাসকদের আগাম প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন তিতলির।