• Monday, July 15, 2024

রাজশাহী নগরীর বর্জ্যে মরছে গাছে

  • Oct 31, 2018

Share With

রাজশাহী নগরীর সিটি বাইপাস এলাকার প্রধানতম সড়কটির দুইধার এখন উন্মুক্ত ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের উচ্ছিষ্ট গাড়িতে নয়তো ভ্যানে করে নিয়ে এসে সড়কের দুই ধারে যত্রতত্র ফেলে যাচ্ছে। আর সেই আবর্জনায় উন্মুক্ত স্থানে দিনের পর দিন পড়ে থেকে পচে-গলে দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে চলেছে। ছড়াচ্ছে রোগ-জীবাণু। দুর্গন্ধে এই সড়ক দিয়ে নগরবাসীর চলাচল অসম্ভব হয়ে পড়েছে। বর্জ্যরে দূষণে রাস্তার ধারে থাকা গাছগুলোও মরতে শুরু করেছে।

নগরবাসীর অভিযোগ রাসিকের অব্যবস্থাপনায় এই পাহাড়সম আবর্জনা নগরীর পরিবেশ দূষিয়ে তুলছে। তারা আরও জানিয়েছেন গ্রিন সিটি ও কিèন সিটি বিনির্মাণে নগরপিতার স্লোগান ‘বলদে দাও রাজশাহী’ এই আবর্জনা অব্যস্থাপনার কারণে মুখ থুবড়ে পড়তে চলেছে। স্থানীয় সকলেই বর্জ্য ব্যস্থাপনায় রাসিকের মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনের প্রত্যক্ষ হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। বর্জ্যকে জ¦ালানী শক্তিতে রূপান্তরের ব্যবস্থা থাকলেও রাসিক সেদিকে এখন পর্যন্ত সেদিকে দৃশ্যত অগ্রসর হয়নি।

সরেজমিনে নগরীর নওদাপাড়া সিটি হাট (গুরুর হাট) এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, এই হাটের পাশেই বিস্তীর্ণ উন্মুক্ত এলাকা জুড়ে ময়লা-আবর্জনার পাহাড় গড়ে উঠেছে। এলাকাটিকে স্থানীয়রা ভাগাড় হিসেবে চিহ্নিত করেছে। এখানে ময়লার স্তুপ হয়ে যাবার কারণে নতুন করে ময়লা ফেলার স্থান হিসেবে বেছে নেয়া হয়েছে সিটি বাইপাস সড়কের দুই ধার। দীর্ঘ প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকা জুড়ে সড়কের ধারে এভাবেই ফেলা হচ্ছে ময়লা-আবর্জনা। নগরবাসীর সকল উচ্ছিষ্ট এখানেই এনে ফেলে রাসিকের পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা। ময়লা-আবর্জনার পাশাপাশি বিভিন্ন পশু-পাখি মারা গেলেও এখানে এনেই ফেলা হচ্ছে। সেই সাথে নগরীর বিভিন্ন বাজারের সকল উচ্ছিষ্টও ফেলা হচ্ছে এখানেই। ময়লা-আবর্জনা ফেলায় সড়কটির দুই ধারের ডোবা ভরাট হয়ে গেছে। সড়কটির দুইধারে নিচু ডোবা জমিতে এখন প্রায় ২০ থেকে ২৫ ফিট ময়লার স্তুপের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন এই ময়লায় সৃষ্ট দূষণে এলাকয় বিভিন্ন প্রজাতির গাছ মারা যেতে শুরু করেছে। রাস্তার দুই ধারে তিনটি তালগাছের মধ্যে দুইটি তালগাছ এরই মধ্যে মরে গেছে, এছাড়াও সম্প্রতি নয়টি কড়ই গাছও এই বর্জ্যরে দূষণে মারা গেছে। এছাড়া এই ময়লাগুলো রোদে শুকিয়ে এর মধ্যে থাকা পলিথিন বাতাসের সাহায্যে উড়ে আশপাশের বিস্তীর্ণ ফসলি জমি ও জলাশয়ে ছড়িয়ে পড়ছে। আর এই ময়লার তীব্র দুর্গন্ধে সড়ক দিয়ে এখন চলাচল প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে। দুর্গন্ধই বলে দিচ্ছে আবর্জনায় এলাকটি বিষাক্ত হয়ে পড়েছে।

সিটি বাইপাস সড়ক দিয়ে নিয়মিত যাতায়াত করা এক মোটরসাইকেল আরোহী বলেন, দুর্গন্ধে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এভাবে চলতে থাকলে এই আবর্জনা থেকে সৃষ্ট রোগ-জীবাণু থেকে নগরবাসী আগামীতে বড় কোন রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত হবে। সিটি বাইপাস এলাকার বাসিন্দা আসলাম বলেন, মেয়র লিটন আমাদের সকলকে স্বপ্ন দেখিয়েছেন, তিনি এই নগরীকে আবারও গ্রিন ও কিèন করে তুলবেন। গত ৫বছর আগে তিনি মেয়র থাকা কালীন আমরা এই নগরীকে যেভাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন দেখেছি আবার সেভাবে দেখতে চাই। তবে সিটি বাইপাস এলাকায় রাস্তার ধারে উন্মুক্ত স্থানে যেভাবে ময়লা ফেলা হচ্ছে তা শুধু এই এলাকারই নয় পুরো নগরীর জন্য বিষাক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করছে। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে রাসিকের উদ্যোগ জানতে প্রধান পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা শেখ মো: মামুনের টেলিফোন নম্বরে কল করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।-sunsine