• Thursday, May 30, 2024

রাজশাহী সীমান্তে চিহ্নিত মাদক বিক্রেতারা আত্মগোপনে

  • Nov 24, 2018

Spread the love

সীমান্তে মাদক কৌশল পরিবর্তন করেছে চিহ্নিত চোরাকারবারিরা। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা চোরাকারবারিদের নামের তালিকা প্রস্তুত করার পর থেকে তারা নতুন কৌশল বেছে নিয়েছে। তারা এখন আড়ালে থেকে উঠতি বয়সের তরুণ-যুবকদের দিয়ে চোরাচালান পরিচালনা করছে। তবে মাদকের মামলা কিছুটা কমলেও সেবনকারীদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দেয়া হচ্ছে বলে দাবি করেছেন বাঘা থানা পুলিশ। পুলিশ জানান, দেশব্যাপী মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার পর গা ঢাকা দিয়েছে সীমান্ত এলাকার শীর্ষ মাদক বিক্রেতা। রাজশাহীর বাঘা সীমান্ত এলাকার ৭টি গ্রামে প্রায় দুই শতাধিক চোরাকারবারি থাকলেও চিহ্নিত রয়েছে শতাধিক ব্যক্তির নাম। এর মধ্যে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা শীর্ষ ৫০ জনের নাম তালিকাভুক্ত করেছে। তবে তাদের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। ফলে জেলার সীমান্ত সংলগ্ন বাঘা, চারঘাট ও গোদাগাড়ীর চোরাকারবারিদের নামের তালিকা প্রস্তুত হওয়ার পর থেকে পুরনো সেভাবে আর চোখে পড়ছে না। এখন যারা মাদকের ব্যবসা করছে তারা সবাই নতুন মুখ।

এদের বয়স ১৮ থেকে ২০ বছরের মধ্যে। চলমান মাদকবিরোধী অভিযান সফল করতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার পক্ষ থেকে জেলার বাঘা সীমান্ত এলাকার আলাইপুর, কিশোরপুর, মহদিপুর, পাকুড়িয়া, হেলালপুর, মীরগঞ্জ ও ভ্যাজালির মোড় থেকে প্রায় দুই শতাধিক মাদক ব্যবসায়ীর নাম উঠে এসেছে। এদের মধ্যে আলোচনায় রয়েছে শতাধিক চোরাকারবারি। তবে গডফাদার হিসেবে রয়েছে ২১ জনের নাম। যারা মূলত বিভিন্ন ধরনের লোকজন দিয়ে মাদক কেনাবেচা করে থাকে। তাদের নামে বাঘা থানায় অস্ত্র ও হত্যা মামলাসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক চোরাচালান মামলা রয়েছে। স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বাঘা সীমান্ত এলাকার কয়েকটি গ্রামের মধ্যে চোরাচালান ব্যবসায় উল্লেখযোগ্য মীরগঞ্জ ও কিশোরপুর। এই দুই গ্রাম থেকে রাজশাহী, নাটোর, ঈশ্বরদী ও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াতের সরাসরি ব্যবস্থা রয়েছে। ফলে এই দুই গ্রামে তৈরি হয়েছে একাধিক চোরাচালান সিন্ডিকেট। যাদের কাজ হচ্ছে ভারত থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত ফেন্সিডিল, হেরোইন, মদ ও ইয়াবা এনে যুব-সমাজকে ধ্বংস করাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করা। বাঘা থানার ওসি মহসিন আলী জানান, চোরাকারবারিদের সঙ্গে কোন আপোস নেই। মাদক বিক্রেতাদের নামের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। তালিকায় আলোচিত শতাধিক চোরাকারবারির মধ্যে ২১ জন শীর্ষ চোরাকারবারি রয়েছে। এরা সকলেই পলাতক।-জনকন্ঠ