• Monday, April 15, 2024

চাঁপাইনবাবগঞ্জে এমপি প্রার্থীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন

  • Sep 26, 2018

ডি এম কপোত নবী : চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ বিশ্বাস চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সদর থানায় প্রায় প্রতিদিন ব্যাপক জনসংযোগ করে চলেছেন।

তিনি একমাত্র ব্যক্তি যিনি ৭৫ পরবর্তী বিএনপি-জামায়াতের শক্ত ঘাঁটিতে হানা দিয়ে সব কিছু তছনছ করে দিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পর পর দুইবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হবার পর এটি এখন আওয়ামী লীগের ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে। গত তিন মাসে শতাধিক জনসভা, গণসংযোগ ও পেশাজীবীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ।

এ-ছাড়াও উন্নয়নের জোয়ার বইছে উপজেলার সর্বত্র। প্রায় আড়াইশ কোটি টাকা ব্যয়ে উপজেলার নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধ থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়ন করেছেন। চঁঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভায় প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সমস্ত রাস্তাঘাট চলাচলের যোগ্য করা হয়েছে। ড্রেনেজ ব্যবস্থায় এসেছে পরিবর্তন। এমন কোন স্কুল, কলেজ ও প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই যে সেখানে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন ও বহুতল ভবন নির্মাণ হয়নি। প্রায় ৩৬ কোটি টাকা ব্যয়ে আড়াইশ বেডের ৮ তলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। যা খুব শীঘ্রই শুরুও হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সড়ক ও কালভার্ট কি পরিমাণে নির্মাণ হয়েছে তার কোন সঠিক হিসাব নেই এ মুহূর্তে। রেল যোগাযোগেও আমূল পরিবর্তন এসেছে। জেলা সদরের সঙ্গে আন্তঃসংযোগ ট্রেনের ব্যবস্থা করেন ওদুদ এমপি। আমনুরা জংশনে একটি নতুন বাই-পাস নির্মাণ করা হয়েছে। হয়েছে নতুন রেল স্টেশন। জেলা সদরের রেল স্টেশনের উন্নয়ন এখনও অব্যাহত রয়েছে। নির্মাণ করেছেন নতুন জুডিশিয়াল ১০ তলা ভবন। সংযোগ করা হয়েছে পুরান কোর্ট ভবনের সঙ্গে জেলা জজ কোর্টের। যা এখন দৃশ্যমান।

গণপূর্ত বিভাগ নির্মাণ করেছে মুক্তিযোদ্ধাদের একাধিক ভবন ও বাড়ি। নির্মাণ করা হয়েছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ভবন। নির্মিত হয়েছে একাধিক হলঘর ও মার্কেট। উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রয়েছে। একটি নতুন রেলপথ ও রাবার ড্যাম নির্মাণে বিশাল পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ হয়েছে। রেলপথটি জেলা শহরের সঙ্গে সোনামসজিদ স্থলবন্দরের সংযোগ সাধন হবে। ওদুদ এমপির পাশাপাশি দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রহুল আমিন।

তিনি শতাধিক গণ-সংযোগ সভা ও উঠান বৈঠক করেছেন। অপর প্রার্থী সাবেক ছাত্র লীগ নেতা ও ব্যবসায়ী সামিউল হক লিটন ও স্বাধীন চিকিৎসা সেবার অগ্রদূত একটি বেসরকারী মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষক ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. গোলাম রাব্বানী মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌঁড়ে ছুটে বেড়াচ্ছেন এক মহল্লা থেকে অপর মহল্লায়।

তারা বলেছে, আওয়ামী লীগ যাকেই মনোনয়ন দিবে তার জন্যই কাজ করে যাবেন। পাশাপশি জামায়াতে ইসলামী ও বিএনপির প্রচার নীরব হলেও তাদের প্রচার তেমন একটা এখ নপর্যন্ত চোখে পড়েনি। জামায়াতের বুলবুল ঢাকা মহনগরী জামায়াতের নেতা হবার কারণে তিনি প্রার্থীর দৌঁড়ে বেশ এগিয়ে রয়েছেন।

এখানে বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের দ্বন্দ খুবই তীব্র। বিএনপি প্রার্থী হারুনুর রশীদ ও যুব দলের নেতা ওবাইদুল পাঠান বিএনপির প্রার্থী হবার ঘোষণা দিয়ে মাঠে কাজ করছেন। ওবায়েদ পাঠান নির্বাচন উপলক্ষে আগামী ১ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন কওে জানান দিবেন তিনি নির্বাচনী মাঠে নামছেন।

জাতীয় পার্টিকে একাই টেনে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন সাবেক সফল চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম সোনা। তবে জাসদ ইনুর সাংগঠনিক তৎপরতা চোখে পড়ার মতো।মনিরুজ্জামান মনির জাসদ থেকে টিকিট পেয়েছেন। সিপিবির সংগঠন থাকলেও তারা কোন ঘোষণা দিয়ে প্রার্থী দেবে এমনটা বলা যাচ্ছে না। এ ছাড়া আর নেই অন্য কোন দলের প্রার্থী।

এখন পর্যন্ত তাই বলা যায়, আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় বর্তমান সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ বিশ্বাস অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন ভোটের মাঠে। আর তার সাতে রয়েছেন জামায়াত প্রার্থী বুলবুল ইসলাম। কে জিতবে আর কে হারবে সেটা বুঝা যাবে ব্যালট পেপারের মাধ্যমেই। সে পর্যন্ত এখন শুধু অপেক্ষার পালা।